জেনে নিন পেঁয়াজের গুনাগুন ও ১৫ টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

পেঁয়াজ খাবারের স্বাদবৃদ্ধি ছাড়াও রয়েছে অসংখ্য উপকারিতা ।  প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণের সঙ্গে এতে একটি বড় পেঁয়াজে ৮৬.৮ % জল, ১.২% প্রোটিন, ১১.৬% শর্করা জাতীয় পদার্থ, ০.১৮% ক্যালসিয়াম, ০.০৪ % ফসফরাস ও ০.৭ % লোহা থাকে এছাড়াও ভিটামিন এ, বি, সি এবং ফাইবার আছে।

জেনে নিন পেঁয়াজের গুনাগুন ও ১৫ টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

আমরা রান্নার জন্য অথবা  স্যালাদ, স্যান্ডউইচ, কিংবা শুধু মুড়িতে মেখে যেমন নানা ভাবে পেঁয়াজ ব্যবহার করি। কিন্তু পেঁয়াজ আমাদের  দেহের জন্য অনেক উপকারী হয়ে থাকে। একাধিক গবেষণায় এ কথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে, পেঁয়াজের আমাদের শরীরে উপস্থিত বেশ কিছু উপকারি উপাদান একাধিক রোগের চিকিৎসায় বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। নিম্নে পেঁয়াজের নানান রকম উপকারিতা আলোচনা করা হলো।

পেঁয়াজের ১৬ টি স্বাস্থ‍্য‍ উপকারিতা সমূহ:-

১# প্রাকৃতিক ভাবে আপনার হজম শক্তি বাড়ায় (Improve Your Digestion Naturally) — আমাদের মধ্যে যাদের হজমে সমস্যা আছে তারা নিয়মিত একটু কাঁচা পেঁয়াজ খান, পেঁয়াজ খাবার হজমের জন্য বিভিন্ন এনজাইম বাড়াতে সাহায্য করে ফলে দ্রুত খাবার হজম হয়।

২) আপনার হৃদয় এবং হাড় ভালো রাখতে সাহায্য করে (Help Keep your Heart and Bones strong) — হাড়ের কঠিন সমস্যা অ্যাথেরসক্লোবোসিস এবং অস্টি ও কোরোসিসের মতো রোগের সঙ্গে লড়ে। তার সঙ্গে দেহে খারাপ কোলেস্ট্রল কমায় যার ফলে আমাদের হার্ট সুস্থ থাকে।

৩) সংক্রমণ সারায় (Infection Heals) — পেঁয়াজের মধ্যে কার্মেনেটিভ, অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল,অ্যান্টিসেপ্টিক এবং অ্যান্টিবায়োটিক জাতীয় পদার্থ থাকে । তাই শরীরে কোথাও সংক্রামন ঘটে থাকলে কাঁচা পেঁয়াজ খেলে উপকার হয় ।

৪) আঁচিল দূর করে (Remove the mole)  — একটি পেঁয়াজ গোল করে কেটে আঁচিলের উপর রেখে একটা কাপড় দিয়ে বেঁধে দিন। যেন সেটি পরে না যায়। শুতে যাওয়ার আগে প্রতিদিন রাতে এমনটা করলে অল্প দিনেই দেখবেন আঁচিল খসে পরে গেছে।

৫) কাশির প্রকোপ কমায় (Reduces the incidence of cough) — একটা পেঁয়াজকে কেটে নিয়ে তার রস বের করে নিন। তারপর তাতে কয়েক ড্রপ মধু মিশিয়ে এই মিশ্রন তৈরী করে দিনে কম করে দুবার পান করুন। এতে কাশি কমে যেতে শুরু করবে।

৬) নাক থেকে রক্ত পাত বন্ধ (Nose Blood Vessel Removal)  — আমাদের মধ্যে অনেকের নাক থেকে রক্ত পাত হয়ে থাকে। এ সময়ে পেঁয়াজ কেটে তার ঘ্রান কিছুক্ষন নিলে রক্ত পাত কমে যায় ।

৭) ত্বকের সমস্যা সমাধান (Skin problem solution) — রোদে পোড়া ট‍্যান, পোকামাকড়ের কামড়, ব্রণ – ফুস্কুরি, এসবের সমস্যা থাকলে সে সমস্থ জায়গায় একটু পেঁয়াজের রস লাগান, একটু কুট কুট করতে পারে, তবে দ্রুত কাজ করবে ।

৮) ডায়োবেটিক দের জন‍্য ভালো (Good for Diabetes) — দেহে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়াতে এবং রক্তে শর্করার মাত্রা ঠিক রাখতে পেঁয়াজ সাহায‍্য করে ।

৯) ক‍্যান্সারের সঙ্গে লড়ে (Fighting with cancer) — পেঁয়াজ কোলন ক‍্যান্সরের মতো রোগের সঙ্গে লড়তে সাহায‍্য করে । নিয়মিত পেঁয়াজ খেলে ক‍্যান্সরের মতো রোগের ভালো হতে সাহায্য করে।

১০) জন্ডিস প্রতিরোধ (Prevention of jaundice) — একটি পেঁয়াজ এর এক- চতুর্থাংশ সারা রাত লেবুর রসে ভিজিয়ে রেখে সকাল বেলা খেলে উপকার পাওয়া যায়।

১১) প্রচণ্ড গরমে দেহের উষ্ণতা হ্রাস —  ভাতের সঙ্গে কাঁচা পেঁয়াজ খেলে প্রচণ্ড গরমে দেহের উষ্ণভাব কে কমিয়ে দেয়। তাই প্রচণ্ড গরমে পেঁয়াজ খেতে ভুলবেন না।

১২) মুখের বদ-গন্ধ থেকে মুক্তি (Get Rid of Bad Breath) —  কাঁচা পেঁয়াজ খেলে মুখ গহ্বরের উপস্থিত ব্যাকটেরিয়াগুলি মরতে শুরু করে। ফলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। সেই সঙ্গে মাড়িতে নানাবিধ রোগ হওয়ার আশঙ্কাও কমে।

১৩) পুড়ে যাওয়া ক্ষত স্থান — রান্না করতে গিয়ে হাত পুড়ে যাওয়ার ঘটনা গৃহিণীদের সঙ্গে প্রায় দেখা যায়। এক্ষেত্রেও পিঁয়াজ দারুন উপকারে লাগে। পেঁয়াজ লাগালে অল্প সময়েই দেখবেন জ্বালা ভাব কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্ষতও সেরে গেছে।

১৪). জ্বর / সর্দিতে মুক্তি ( Release to fever, cough)  — বর্তমান আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় প্রায় আমরা জ্বর, সর্দি – কাশি, অ্যালার্জি ইত্যাদি লেগে থাকে। ঠাণ্ডা লাগার ফলে আমাদের  গলা ব‍্যথা, সর্দি- কাশি, তাপমাত্রা, অ্যালার্জি,সামান‍্য গা ব‍্যথা করে। পেঁয়াজ খেলে এর থেকে উপকার পাওয়া যায়।

১৫) স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটায় (Improve memory)  — সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র অনুসারে নিয়মিত কাঁচা পেঁয়াজ খেলে ব্রেন পাওয়ার বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। ফলে স্মৃতিশক্তির যেমন উন্নতি ঘটে, তেমনি নার্ভাস সিস্টেমের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে একাধিক ব্রেন ডিজিজ হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।

পেঁয়াজের ক্ষতিকর দিক সমূহ :

কাঁচা পেঁয়াজ খেয়ে বের হলে আপনার মুখ থেকে গন্ধ বের হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  তাছাড়া পেঁয়াজের তেমন কোনো ক্ষতিকর দিক নেই।  তবে কোনো কিছুর অতিরিক্ত ভালো না।

আমাদের পোস্টি ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। পরবর্তীতে দেখার জন্য আপনার টাইম লাইনে রাখুন। কোনো ভুলত্রূটি থাকলে বা কোনো পরামর্শ থাকলে আমাদের কে ম্যাসেজ করুন। পেঁয়াজের গুনাগুন সম্পর্কে আপনার মন্তব্য কমেন্ট করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *